নোটিশ:
জৈন্তাপুর প্রতিদিন একটি অনলাইন ভিত্তিক জনপ্রিয় দৈনিক পত্রিকা । আপনাদের আশে পাশে ঘটে যাওয়া সংবাদটি আমাদের জানান । আমরা সঠিক তথ্য যাচাই করে খবর পোস্ট করবো ।জৈন্তাপুর প্রতিদিন একটি অনলাইন ভিত্তিক জনপ্রিয় দৈনিক পত্রিকা । আপনাদের আশে পাশে ঘটে যাওয়া সংবাদটি আমাদের জানান । আমরা সঠিক তথ্য যাচাই করে খবর পোস্ট করবো ।জৈন্তাপুর প্রতিদিন একটি অনলাইন ভিত্তিক জনপ্রিয় দৈনিক পত্রিকা । আপনাদের আশে পাশে ঘটে যাওয়া সংবাদটি আমাদের জানান । আমরা সঠিক তথ্য যাচাই করে খবর পোস্ট করবো ।জৈন্তাপুর প্রতিদিন একটি অনলাইন ভিত্তিক জনপ্রিয় দৈনিক পত্রিকা । আপনাদের আশে পাশে ঘটে যাওয়া সংবাদটি আমাদের জানান । আমরা সঠিক তথ্য যাচাই করে খবর পোস্ট করবো ।
শিরোনাম :
নবীগঞ্জে ইয়াবা মামলায় সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি সোহাগকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব-৯ স্ট্যাটাস দিয়ে প্রমাণ দিতে হলো, আমি বেঁচে আছি : হানিফ সংকেত ধর্মপাশায় পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্রীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ সহকারী শিক্ষকের বিরুদ্ধে ওসমানীনগরে শাহীন ডাকাত গ্রেফতার টাঙ্গাইলের সখিপুর আসামী গ্রেফতারও ভিকটিম উদ্ধার করল পুলিশ জৈন্তাপুরে নদী ভাঙ্গনের কবলে কয়েকটি গ্রামের বাসিন্ধা চিকনাগুলের বানবাসি মানুষের মধ্যে উপজেলা চেয়ারম্যানের ত্রাণ বিতরণ হানিফ সংকেতের মৃত্যুর গুজব রাজনগরে জনশুমারি বিষয়ক অবহিতকরণ সভা শাবিপ্রবিতে স্পিকার্স ক্লাবের আয়োজনে ক্যারিয়ার বিষয়ক সেমিনার
চট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জে চড়ছে পেঁয়াজের দাম

চট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জে চড়ছে পেঁয়াজের দাম

ভোজ্যতেলের পর এবার দেশের অন্যতম পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জে বাড়তে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম। দুই দিনের ব্যবধানে খাতুনগঞ্জে কেজিতে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে ২-৩ টাকা বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। গতকাল খাতুনগঞ্জে খোঁজ নিয়ে দেখা যায়, ভারতীয় নাসিক জাতের প্রতি কেজি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৩২-৩৩ টাকায়। দুই দিন আগেও এই পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছিল ২৯ থেকে ৩০ টাকায়।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, ৫ মে আমদানির অনুমতির মেয়াদ শেষ হওয়ার পর এখন ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ আছে। এ কারণেই গত দুই দিনে খাতুনগঞ্জে বাড়তে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম। দ্রুত আমদানির অনুমতি না পেলে সামনে পেঁয়াজের দাম আরও বেড়ে যাবে বলে জানিয়েছেন তাঁরা। তবে বাজারে প্রতিটি আড়তে পেঁয়াজের পর্যাপ্ত মজুত দেখা গেছে। যদিও ব্যবসায়ীরা বলছেন, সরবরাহ না থাকলে দুই দিনেই এই পেঁয়াজ শেষ হয়ে যাবে।

রহমত এন্টারপ্রাইজের মালিক নাজিম উদ্দিন বলেন, বাজারে এখন দেশি পেঁয়াজ খুব বেশি নেই। মিয়ানমারের পেঁয়াজ আমদানিও বন্ধ আছে। তাই এখন ভারতীয় পেঁয়াজ দিয়েই বাজারের চাহিদা পূরণ হচ্ছে। এখন আমদানির অনুমতি (আইপি) বন্ধ থাকলে বাজারে পেঁয়াজের সংকট তৈরি হবে। বাজারে এখন যে পরিমাণ পেঁয়াজ মজুত আছে, এগুলো দু-এক দিনের মধ্যেই শেষ হয়ে যাবে।

খাতুনগঞ্জের একাধিক আড়তে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বাজারে এখন ভারতীয় চার ধরনের পেঁয়াজ পাওয়া যাচ্ছে। এর মধ্যে ভারতীয় নাসিক জাতের পেঁয়াজ কেজিপ্রতি ২-৩ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৩২-৩৩ টাকায়। ইন্দুরি জাতের পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২৮-২৯ টাকায়। দুই দিন আগে এই পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছিল ২৬-২৭ টাকায়। এ ছাড়া বেলডাঙ্গা ও খাশখালী জাতের পেঁয়াজ মানভেদে ২২ থেকে ২৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। ভারতীয় পেঁয়াজের বাইরে বাজারে দেশি পেঁয়াজ পাওয়া যাচ্ছে। মানভেদে প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ২৭-২৮ টাকায়।

প্লিজ সেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY Mission It Development ltd.
x
English version