///

আইইউবির ২৩তম সমাবর্তন অনুষ্ঠিত

15 mins read

ইনডিপেনডেন্ট ইউনিভার্সিটি, বাংলাদেশ (আইইউবি)-এর ২৩তম সমাবর্তন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রবিবার (১৯ মার্চ) রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় অবস্থিত আইইউবি ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হয়। রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্যের প্রতিনিধি হিসেবে অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব এবং সনদ প্রদান করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

ডা. দীপু মনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাশ করে বেশিরভাগ শিক্ষার্থী চাকরির পেছনে ছোটে। শুধুমাত্র চাকরির পেছনে না ছুটে উদ্যোক্তা হয়ে কর্মসংস্থান সৃষ্টি করতে হবে। মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন ও আদর্শ সমাজ গঠনে আপনাদের এগিয়ে আসতে হবে। উদ্যোক্তা তৈরির পরিবেশ সৃষ্টিতে অভিভাবকদের ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

সমাবর্তন বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন প্রখ্যাত অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক ওয়াহিদউদ্দিন মাহমুদ। স্নাতকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য অবকাঠামোর প্রয়োজনীয়তা অস্বীকার করার উপায় নেই। কিন্তু, এর পাশাপাশি দক্ষ মানবসম্পদ না থাকলে সেই অবকাঠামোর দশা হয় অনেকটা কঙ্কালের মতো, যার নিজের কিছু করার ক্ষমতা নেই। তাই আমি তোমাদের আহ্বান জানাবো, দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য তোমরা তোমাদের অর্জিত জ্ঞান ও শিক্ষা উৎপাদনশীল কাজে ব্যবহার করবে।”

আইইউবি বোর্ড অব ট্রাস্টিজের চেয়ারম্যান জনাব আব্দুল হাই সরকার বলেন, আমি যখন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাশ করি, তার কদিন পরেই শুরু হয়েছিলো আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধ। টালমাটাল সেই সময়ে আমাদের সমাবর্তন পাওয়া হয়ে ওঠেনি। তবে তোমরা আমাদের তুলনায় অনেক ভাগ্যবান কারণ তোমরা যথাসময়ে সমাবর্তনের মাধ্যমে স্নাতক হিসেবে সম্মান পাচ্ছো। আর এটা সম্ভব হয়েছে শুধুমাত্র তোমরা একটি স্বাধীন দেশের নাগরিক বলে। যেই স্বাধীনতার জন্য ১৯৭১-এ লাখো মানুষ আত্মত্যাগ করেছেন। জীবনে চলার পথে তাদের অবদান ভুলে গেলে চলবে না।

এডুকেশন সায়েন্স টেকনোলজি অ্যান্ড কালচারাল ডেভেলপমেন্ট ট্রাস্ট-এর ভাইস চেয়ারম্যান মিসেস সালমা করিম বলেন, আইইউবির গ্র্যাজুয়েটরা দেশে বিদেশে অত্যন্ত সুনামের সঙ্গে কর্মরত রয়েছেন। আমি আশা করবো যে ২৩তম সমাবর্তনের গ্র্যাজুয়েটরাও তাদের মতোই সফল হবেন। দেশ ও আইইউবির নাম উজ্জ্বল করবেন।

আইইউবির উপাচার্য তানভীর হাসান বলেন, আইইউবিতে বেশ কয়েক বছর ধরেই নারী শিক্ষার্থীরা পুরুষ শিক্ষার্থীদের তুলনায় ভালো ফলাফল করছেন। এবারের সমাবর্তনে চ্যান্সেলর্স গোল্ড মেডেল পাওয়া তিন শিক্ষার্থীই নারী। আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস যে সাম্প্রতিক সময়ে আমরা আইইউবিকে নারীবান্ধব ক্যাম্পাস হিসেবে গড়ে তোলার জন্য যে সব উদ্যোগ নিয়েছি, আমাদের নারী শিক্ষার্থীদের সাফল্য তারই ফল।

সমাবর্তন অনুষ্ঠানে আইইউবির সম্মানিত ট্রাস্টিবৃন্দ, অভিভাবকবৃন্দ এবং আইইউবির শিক্ষক ও কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Latest from Blog

x
English version