/////

টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ী ঢলে সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

9 mins read

জৈন্তাপুর প্রতিদিন ডেস্ক :: সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলায় গত কয়েক দিনের টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ী ঢলে সৃষ্ট ফ্লাস বন্যায় উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। সারী, বড় নয়াগং ও রাংপানি নদীর পানি স্বাভাবিকের চেয়ে বৃদ্ধি পাচ্ছে। অনবরত বৃষ্টিপাত হলে যেকোন মুহুর্তে সবকটি নদীর পানি বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হবে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, গত কয়েক দিনের টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ী ঢলে পানিবন্দী হয়ে পড়েছে নিজপাট ও জৈন্তাপুর ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চল।  পানিতে তলিয়ে গেছে কয়েক হাজার হেক্টর বোরো ধান। এছাড়া বন্যায় পরিস্থিতির খোঁজ খবর রাখছেন জনপ্রতিনিধি প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিরা।

বন্যা কবলিত এলাকা নয়াবাড়ী, হর্নি, বাইরাখেল, গোয়াবাড়ী, ফুলবাড়ী, ডিবিরহাওর, ঘিলাতৈল, মুক্তাপুর, বিরাইমারা হাওর, খারুবিল, চাতলারপাড়, ডুলটিরপাড়, ১নং লক্ষীপুর, ২নং লক্ষীপুর, আমবাড়ী, ঝিঙ্গাবাড়ী, কাঠালবাড়ী, নলজুরী হাওর সহ নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।

উপজেলা সর্ববৃহৎ সারী নদী ও বড় নয়াগাং নদী এবং রাংপানি নদীর পানি বিপদ সীমার নিকটে চলে আসছে। টানা বৃষ্টি অব্যাহত থাকলে নদীর পানি সমূহ বিপদ সীমার নিকটে চলে আসবে।

সারী-গোয়াইন বেড়ীবাঁধ প্রকল্পের কর্মকর্তা মো. আলা উদ্দিন বলেন, টানা বৃষ্টি ও পাহাড়ী ঢলের কারণে পানি নিম্নাঞ্চলের দিকে প্রবাহিত হচ্ছে। বৃষ্টি অব্যাহত থাকলে পানি বিপদসীমার সন্নিকটে প্রবাহিত হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) উম্মে সালিক রুমাইয়া বলেন, জৈন্তাপুর উপজেলা বাংলাদেশের একমাত্র উপজেলা যেখানে বেশি বৃষ্টিপাত হয়। পাহাড়ী ঢল টানা বৃষ্টিতে সৃষ্ট বন্যায় নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হচ্ছে।  আামরা বন্যার পরিস্থিতির পর্যবেক্ষণ করছি এবং জনসাধারণকে সর্তক থাকতে বলা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Latest from Blog

x
English version