নোটিশ:
জৈন্তাপুর প্রতিদিন একটি অনলাইন ভিত্তিক জনপ্রিয় দৈনিক পত্রিকা । আপনাদের আশে পাশে ঘটে যাওয়া সংবাদটি আমাদের জানান । আমরা সঠিক তথ্য যাচাই করে খবর পোস্ট করবো ।জৈন্তাপুর প্রতিদিন একটি অনলাইন ভিত্তিক জনপ্রিয় দৈনিক পত্রিকা । আপনাদের আশে পাশে ঘটে যাওয়া সংবাদটি আমাদের জানান । আমরা সঠিক তথ্য যাচাই করে খবর পোস্ট করবো ।জৈন্তাপুর প্রতিদিন একটি অনলাইন ভিত্তিক জনপ্রিয় দৈনিক পত্রিকা । আপনাদের আশে পাশে ঘটে যাওয়া সংবাদটি আমাদের জানান । আমরা সঠিক তথ্য যাচাই করে খবর পোস্ট করবো ।জৈন্তাপুর প্রতিদিন একটি অনলাইন ভিত্তিক জনপ্রিয় দৈনিক পত্রিকা । আপনাদের আশে পাশে ঘটে যাওয়া সংবাদটি আমাদের জানান । আমরা সঠিক তথ্য যাচাই করে খবর পোস্ট করবো ।
টুইটার, টিকটক, ট্রিলারেও বাজিমাত নেইমারের

টুইটার, টিকটক, ট্রিলারেও বাজিমাত নেইমারের

নেইমারের সময়টা এখন খারাপ। পায়ের চোটে আবারও মাঠের বাইরে যেতে হয়েছে। তাঁর সৌভাগ্য, হাড়ে কোনো চোট ধরা পড়েনি। অন্যান্য পরীক্ষায় খারাপ কিছু না পেলে দ্রুতই মাঠে ফিরবেন পিএসজি ফরোয়ার্ড।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে আজ ‘দ্রুতই, দ্রুতই’ লিখে আশাব্যঞ্জক একটি পোস্টও করেছেন ব্রাজিল তারকা। যদিও তাঁর পোস্টটি মাঠে ফেরা নিয়ে কি না, তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে নেইমার কিন্তু ভালোই সরব।

ফুটবলারদের মধ্যে এ আঙিনায় তাঁর জনপ্রিয়তাও ঈর্ষণীয়। টুইটারে তাঁর অনুসারীর সংখ্যা ৫ কোটির বেশি। ফেসবুকে ৫.৯ কোটি এবং ইনস্টাগ্রামে ১৪.৩ কোটি অনুসারী।

হাল আমলে ভিডিও অ্যাপস টিকটক ভীষণ জনপ্রিয়। নেইমার অনলাইনে এই আঙিনাও জয় করেছিলেন চলতি বছর। সেটিও পাঁচ মাসেরও কম সময়ের ব্যবধানে!

নেইমারকে ধরা হয় বিশ্বের সেরা তিন খেলোয়াড়ের একজন। ভীষণ জনপ্রিয় এ ফুটবলার কিন্তু টিকটক জয় করে সেখানে থাকেননি, চলে যান নতুন রোমাঞ্চকর অভিযানে—ভিডিও বানানোয় যুক্তরাষ্ট্রের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম নেটওয়ার্ক ‘ট্রিলার’।

গত নভেম্বরে টিকটক ছেড়ে নেইমারের ট্রিলারে যোগ দেওয়া খবর জানিয়েছিল সংবাদমাধ্যম। টিকটকে নিজের অনুসারীদেরও ট্রিলারে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন নেইমার। তাঁদের সঙ্গে লোভনীয় অঙ্কের চুক্তি এবং দূত হিসেবেও কাজ করছেন তিনি।

নেইমার টিকটকের আঙিনায় পা রেখেছিলেন গত জুলাইয়ে। নিজের সন্তান ডেভি লুকার সঙ্গে নাচের একটি ভিডিও পোস্ট করেছিলেন টিকটকে। সবাই তা লুফে নিয়েছিল।

নিজের বল্গাহীন জীবনযাপন ও তারুণ্যের প্রতীক হয়ে ওঠায় টিকটকে অনুসারীসংখ্যায় সবচেয়ে জনপ্রিয় ফুটবলার হয়ে যান ২৮ বছর বয়সী এ ফরোয়ার্ড। জুলাই থেকে নভেম্বরের মধ্যে তাঁর অনুসারীসংখ্যা বাড়ার হার ছিল রীতিমতো বিস্ময়কর—৪৪ লাখ থেকে ১ কোটি ৬ লাখ!

অর্থাৎ টিকটকে জনপ্রিয়তায় স্রেফ ঝড় বইয়ে দিয়েছিলেন ব্রাজিলিয়ান তারকা। ইএসপিএন জানিয়েছে, ফুটবল–সংশ্লিষ্ট নানা তথ্য–উপাত্ত বিশ্লেষণকারী প্রতিষ্ঠান কেপিএমজির হিসাব অনুযায়ী, টিকটকে নেইমার থাকতে জনপ্রিয়তায় ফুটবলারদের মধ্যে দ্বিতীয় ছিলেন রিয়ালের স্প্যানিশ তারকাসার্জিও রামোস (৪৫ লাখ)।

প্লিজ সেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY Mission It Development ltd.
x
English version