//

তাহিরপুর সীমান্তে ৩ দিনব্যাপী ‘ধর্মীয় মিলনমেলা’ শুরু

17 mins read

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার সীমান্তবর্তী নদী যাদুকাটার তীরে ৩ দিনব্যাপী ওরস ও পনাতীর্থ উৎসবকে ঘিরে দুই ধর্মের আধ্যাত্মিক সাধকদের মিলনমেলা শুরু হয়েছে।

রবিবার (১৯ মার্চ) সকাল থেকে শ্রীঅদ্বৈত্য আচার্য মহাপ্রভুর জন্মধাম নবগ্রাম রাজারগাঁও শ্রী অদৈত্বধাম সংলগ্ন ২৩ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের সীমান্ত এবং যাদুকাটার তীরবর্তী ৭২০ বছরের প্রাচীনতম ঐতিহ্যবাহী ৩৬০ আউলিয়ার অন্যতম সফরসঙ্গী হযরত শাহ্ আরেফিন (রঃ)’র পবিত্র ওরশ থেকে শুরু হয়। মঙ্গলবার (২১ মার্চ) সন্ধায় শেষ হবে।

এ উৎসবকে ঘিরে হযরত শাহ্ আরেফিন (রঃ)’র আস্তানাসহ উভয় ধর্মের লোকজন বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। অতিরিক্ত নিরাপত্তার লক্ষ্যে পুরো এলাকা সিসিটিভি ক্যামেরা দিয়ে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। পর্যাপ্ত পুলিশ, বিজিবি, আনসার, পরিচালনা কমিটির লোকসহ স্থানীয় শতাধিক স্বেচ্ছাসেবক নিরাপত্তা সহকারী হিসেবে কাজ করে যাবে।

হিন্দুশাস্ত্রের মহাপুরুষ শ্রী অদ্বৈত্য মহাপ্রভুর আখড়াবাড়ী ও জন্মধাম সংরক্ষণ সংস্কার এবং কার্যনিবাহী কমিটির সভাপতি করুনা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল জানান, দেশের সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বৃহৎ স্নানযাত্রার মুখ্য সময়- এ বছর ১৯ মার্চ রাত ৯টা ১৪ মিনিট ১৫ সেকেন্ড পর্যন্ত মধুকৃষ্ণা ত্রয়োদশীতে পুণ্যস্নান অনুষ্ঠিত হবে।

এছাড়া গঙ্গাস্নান যাত্রাকে কেন্দ্র করে আন্তর্জাতিক কৃষ্ণ ভাবনামৃত সংঘের (ইস্কন) উদ্যোগে সপ্তাহব্যাপী ও পৃথকভাবে মঙ্গল আরতী, ভজন, লীলা কীর্তন, বৈদিক নাটক, গঙ্গাপূজা, দেশের বেতার, টিভি ও মঞ্চ শিল্পীদের অংশগ্রহণে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং ধর্মীয় আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

বাদাঘাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ওরস পরিচালনা কমিটির সহ-সভাপতি নিজাম উদ্দিনি বলেন, হযরত শাহ্‌ আরেফিন (রহঃ) ওরসের প্রথম দিন থেকে শেষ দিন পর্যন্ত কোরআন তেলাওয়াত, জিকির, মোর্শেদী, ভান্ডারী, পল্লীগীতি, লালনগীতি, বাউলসঙ্গীত, জেলার মরমী কবি ও সাধক পুরুষ হাছন রাজা এবং বাউল সম্রাট শাহ্ আব্দুল করিমের লোকসঙ্গীতে মেতে থাকবে ওরসস্থল।

এদিকে, আয়োজনকে সিসিটিভি ক্যামেরায় সার্বক্ষণিক মনিটরিং করা হবে। এছাড়া বিভিন্ন স্তরে নিচ্ছিদ্র নিরাপত্তা বলয় তৈরি করেছে জেলা প্রশাসন। বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থা, পয়ঃনিষ্কাশন, মুসাফিরদের খাবারের জন্য লংগরখানা ও লোকজনের সেবা দিতে কমিটির শতাধিক নিজস্ব ভলেন্টিয়ার রয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

তাহিরপুর থানার ওসি ইফতেখার হোসেন বলেন, দুই ধর্মের মিলনমেলাকে ঘিরে পুলিশ-প্রশাসন কঠোর নিরাপত্তাসহ ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে এবং ওরস এলাকাকে সিসিক্যামেরায় বেষ্টিত করা হয়েছে।

তাহিরপুর উপজেলা নিবার্হী কর্মকর্তা ও হযরত শাহ আরেফিন (রহঃ) ওরস উদযাপন কমিটির সভাপতি সুপ্রভাত চাকমা বলেন, প্রাচীন ঐতিহ্যবাহী ৩ দিনব্যাপী এ মিলনমেলাকে শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্য সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে।

স্থানীয় সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন বলেন, আমার নির্বাচনী এলাকায় দুই সাধকের মিলনমেলা অত্যন্ত সুষ্ঠু-শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করতে সংশ্লিষ্ট সকলকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Latest from Blog

x
English version