নারীর মৃত্যু নিয়ে ধোঁয়াশা মরদেহ থানায় নিল পুলিশ

9 mins read

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে নাজমা বেগম (২৮) নামের এক নারীর মৃত্যু নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরি হওয়ায় মরদেহ থানায় নিয়ে গেছে সরাইল থানা-পুলিশ। ১১ এপ্রিল  সোমবার সন্ধ্যায় উপজেলার অরুয়াইল ইউনিয়নের ধামাউড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
মৃত নাজমা ওই গ্রামের প্রবাসী সাইফুল ইসলামের স্ত্রী। তাঁদের সংসারে এক মেয়ে ও দুই ছেলে রয়েছে।
নাজমার বাবা ও সাবেক ইউপি সদস্য তাজুল ইসলাম বলেন, তাঁর মেয়ে নাজমা বেগম দীর্ঘদিন যাবৎ জটিল ও কঠিন রোগে ভুগছেন। তাঁর স্বামী বিদেশ আছেন। অ্যালোপ্যাথিক চিকিৎসায় আরোগ্য না হওয়ায় কিছুদিন ধরে কবিরাজি ওষুধ সেবন করছিলেন। সোমবার বিকেলে ওষুধ খাওয়ার পর হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে সরাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।
তাজুল ইসলাম আরও বলেন, কে বা কারা গুজব ছড়িয়েছে তাঁর মেয়ে বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। তাই থানা থেকে পুলিশ এসে মরদেহ নিয়ে গেছে ময়নাতদন্তের জন্য।
অরুয়াইল ইউনিয়নের নারী ইউপি সদস্য ও ধামাউড়া গ্রামের বাসিন্দা মালেকা বেগম বলেন, নাজমা তাঁর ওয়ার্ডের বাসিন্দা। তিনি দীর্ঘদিন যাবৎ ব্রেইনের জটিল রোগে ভুগছে। ডাক্তার বিদেশে নিয়ে চিকিৎসা করানোর পরামর্শ দিয়েছেন। আজ বিকেলে মাথা ঘুরে পড়ে গিয়ে তিনি মারা যায়। কিন্তু এলাকায় রব উঠেছে যে নাজমা আত্মহত্যা করেছেন।
সরাইল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মিজানুর রহমান বলেন, কেউ বলছে সে আত্মহত্যা করেছে, কেউ বলছে পা পিছলে পড়ে গিয়ে মারা গেছে। ওই নারীর মৃত্যু নিয়ে ধোঁয়াশা সৃষ্টি হওয়ার কারণে তাঁর লাশ থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানতে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট আসলেই মৃত্যুর আসল কারণ জানা যাবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Latest from Blog

x
English version