নোটিশ:
জৈন্তাপুর প্রতিদিন একটি অনলাইন ভিত্তিক জনপ্রিয় দৈনিক পত্রিকা । আপনাদের আশে পাশে ঘটে যাওয়া সংবাদটি আমাদের জানান । আমরা সঠিক তথ্য যাচাই করে খবর পোস্ট করবো ।জৈন্তাপুর প্রতিদিন একটি অনলাইন ভিত্তিক জনপ্রিয় দৈনিক পত্রিকা । আপনাদের আশে পাশে ঘটে যাওয়া সংবাদটি আমাদের জানান । আমরা সঠিক তথ্য যাচাই করে খবর পোস্ট করবো ।জৈন্তাপুর প্রতিদিন একটি অনলাইন ভিত্তিক জনপ্রিয় দৈনিক পত্রিকা । আপনাদের আশে পাশে ঘটে যাওয়া সংবাদটি আমাদের জানান । আমরা সঠিক তথ্য যাচাই করে খবর পোস্ট করবো ।জৈন্তাপুর প্রতিদিন একটি অনলাইন ভিত্তিক জনপ্রিয় দৈনিক পত্রিকা । আপনাদের আশে পাশে ঘটে যাওয়া সংবাদটি আমাদের জানান । আমরা সঠিক তথ্য যাচাই করে খবর পোস্ট করবো ।
বাস-ট্রাকের মাঝখানে চাপা পড়ে দুই সন্তানসহ অন্তঃসত্ত্বা শিক্ষিকা নিহত

বাস-ট্রাকের মাঝখানে চাপা পড়ে দুই সন্তানসহ অন্তঃসত্ত্বা শিক্ষিকা নিহত

সিরাজগঞ্জ-কড্ডা আঞ্চলিক সড়ক সিরাজগঞ্জ শহরের মিরপুর কালাচান মোড়ে বাস ও ট্রাকের মাঝখানে রিকশাচাপা পড়ে দুই ছেলে-মেয়েসহ অন্তঃসত্ত্বা স্কুল শিক্ষিকার মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় রিকশাচালক আহত হয়েছে। রবিবার দুপুর ১২টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
নিহতরা হলো বনবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা ও পৌর এলাকার মিরপুর দক্ষিনপাড়া মহল্লার মাসুদ রানার স্ত্রী রিফাত সুলতানা রুনী (৩৮), তার ছেলে আদি (১২) ও মেয়ে সোহাইবা (৬)।আহত অটোরিকশা চালক চানমিয়া (২৫) পৌর এলাকার একডালা সুইচগেট এলাকার বাসিন্দা।
সিরাজগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বাহাউদ্দিন ফারুকী জানান, অন্তঃসত্ত্বা স্কুল শিক্ষিকা রুনী তার ছেলে ও মেয়েকে নিয়ে ব্যাটারিচালিত রিকশাযোগে শহরে যাচ্ছিলেন। রিকশাটি সিরাজগঞ্জ-কড্ডা আঞ্চলিক সড়ক শহরের মিরপুর কালাচান মোড় এলাকায় পৌঁছালে একটি ট্রাক-বাসের মাঝখানে পড়ে যায়। এসময় বাসের চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রিকশাটিকে চাপা দেওয়ায় ঘটনাস্থলেই শিক্ষিকা রুনী ও ছেলে আদি মারা যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে নেয়া হলে মেয়ে সোহাইবা মারা যায়।
তিনি আরও জানান, লাশ উদ্ধারের পর ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। বাসটিকে জব্দ করা হয়েছে।
সৌজন্যে : বিডিপ্রতিদিন

প্লিজ সেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Log In

© ২০২০ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY Mission It Development ltd.
English version