নির্মাণের অপেক্ষায় আনফরের ভাঙ্গা সেতু

11 mins read

সিলেটের গোয়াইনঘাটের রুস্তমপুর ইউনিয়নে ভোলাগঞ্জ (আরএইচডি) দোয়ারাবাজার ভাটরাই হাদারপাড় জিসি সড়কের ৬৫৪ মিটার চেইনেজে লুনি নদের ওপর আনফরের ভাঙা সেতু নির্মাণের এলাকাবাসীর দীর্ঘ দিনের স্বপ্ন বাস্তবতার মুখ দেখতে যাচ্ছে। জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির একনেক সর্বশেষ সভায় পল্লি সড়কে গুরুত্বপূর্ণ সেতু নির্মাণ ২য় পর্যায় প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়।
আনফরের ভাঙায় সেতু নির্মাণের প্রস্তাবটি অনুমোদন পায়। গোয়াইনঘাট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ফারুক আহমদ বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তার মধ্য দিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের বহুল প্রত্যাশিত স্বপ্ন পূরণ হতে যাচ্ছে বলে মনে করেন নাগরিক সমাজ। পাশাপাশি জাতীয় উন্নয়নে সেতুটি বিশেষ ভূমিকাপালন করবে।
উপজেলা পরিষদ সূত্রে জানা যায়, ২০০ মিটার দীর্ঘ সেতু নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ৩৪ কোটি টাকা। ৫০০ মিটার সংযোগ সড়ক নির্মাণে আরও ৩ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর। জনগুরুত্বপূর্ণ সেতুটি কেবল রুস্তমপুরের জন্যই নয়, বিছনাকান্দি পর্যটন স্থান, পাথর কোয়ারি সহ ভারত-বাংলাদেশ স্থল যোগাযোগ আরও সহজ করে তুলবে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।
পর্যটন স্থান বিছনাকান্দির যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম হল রাস্তা। দেশের বিভিন্ন জায়গা হতে পর্যটকেরা আসে, কিন্তু ভাঙায় সেতু না থাকায় পর্যটকদের প্রতিবন্ধকতা পড়ে। যার কারণে দুর্ভোগে পড়তে হয় এই রাস্তায় যাতায়াত করা স্থানীয় বাসিন্দা ও পর্যটকদের।
এলাকাবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি ছিল আনফরের ভাঙায় সেতু নির্মাণ। সেতু নির্মাণ শেষ হলে পর্যটক সমাগম বৃদ্ধি পাবে পাশাপাশি নিম্ন আয়ের মানুষের কর্মসংস্থান বাড়বে৷
সেতু নির্মাণের উদ্যোগের খবরে গোয়াইনঘাট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ফারুক আহমদ নিজ কার্যালয়ে ‘মিষ্টি বিতরণ করেন। তিনি প্রকল্প অনুমোদন করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ইমরান আহমদসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিক অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞতা জানাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Latest from Blog

x
English version